আমাদের নবী (সা.) কি গায়েব জানতেন? | islam.bdview24.com : The Religion of Islam

আমাদের নবী (সা.) কি গায়েব জানতেন?


প্রশ্ন : আমাদের নবী (সা.) কি গায়েব সম্পর্কে জানতেন?

উত্তর : আল্লাহতায়ালা কোরআনে কারিমে বলেছেন, ‘বলুন হে নবী, আসমান ও জমিনে কেউ গায়েব জানে না, আল্লাহ ব্যতীত। 

আসমান ও জমিনে কোন জিনিস কীভাবে কোথায় লুকায়িত আছে, ভবিষ্যতে কী হবে, আগে কী হয়েছে, বর্তমানে কোথায় কী হচ্ছে,

 যে জিনিসগুলো আমাদের চোখের সামনে নেই, সেগুলো একমাত্র আল্লাহ রাব্বুল আলামিন জানেন, আর কেউ জানেন না। 

এগুলো জানার দাবি যে করবে, সে আল্লাহ রাব্বুল আলামিনের আলিমুল গায়েব এই সিফাত দাবি করছে, আর সে শিরক করল।

এ কারণে যেকোনো মানুষ গায়েব জানার কথা দাবি করলে সে মুশরিক হয়ে যাবে। আল্লাহতায়ালা ছাড়া কেউ গায়েবের খবর জানেন না।

 আল্লাহতায়ালা যাকে যেটা জানিয়েছেন, সে সেটা জানে। মুহাম্মদকেও (সা.) আল্লাহতায়ালা অনেক গায়েবি খবর জানিয়েছেন। 

তবে সেগুলো জানার কারণে তাঁকে গায়েবের মালিক বলা যাবে না। এটাকে বলা হয় গায়েবে নাসবি বা আপেক্ষিক গায়েব। 

যেমন আপনি যদি কানাডায় না গিয়ে থাকেন, তাহলে কানাডা আপনার কাছে গায়েব; কিন্তু যিনি গিয়েছেন, তাঁর কাছে এটা গায়েব না।

রাসূলকে (সা.) আল্লাহতায়ালা এ রকম অনেক গায়েবি খবর জানিয়েছেন, কিন্তু তিনি নিজ থেকে কিছু জানতেন না। 

যেগুলো তাঁকে (সা.) জানানো হয়েছে, তার বাইরেও অনেক গায়েবি বিষয় রয়েছে। রাসূল (সা.) নিজেও বলতেন, ‘যদি আমি গায়েব জানতাম, তাহলে আমি নিজের জন্য অনেক বেশি কল্যাণ করতাম।’

 আল্লাহতায়ালা কোরআনেও বারবার বলেছেন, ‘নবী, আপনিও কোনো গায়েব জানেন না।’ তাই এভাবে কেউ বলতে পারবেন না যে তিনি নিজে গায়েব জানেন কিংবা রাসূল (সা.) গায়েব জানতেন। বললে আল্লাহর সিফতের দাবি করার কারণে তিনি মুশরিক হয়ে যাবেন।

রাসূলকে (সা.) আল্লাহ গায়েবের কিছু এলেম দান করেছেন, যে কারণে তিনি কিছু কিছু ভবিষ্যদ্বাণী করেছেন। 

যেমন—কেয়ামতের আলামত কী কী হবে, কবরের আজাব কেমন হবে, হাশরের মাঠের বিভিন্ন বর্ণনা ইত্যাদি তিনি আমাদের জানিয়ে দিয়েছেন।
Share on Google Plus

About বার্তা কক্ষ

প্রকাশিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা সম্পূর্ণ বে আইনি।
    Blogger Comment
    Facebook Comment

0 comments:

Post a Comment